May a good source be with you.

পশ্চিমবঙ্গ: এই প্রথমবার নির্বাচনে যে এলাকাগুলিতে মোবাইল ফোনের নেটওয়ার্ক কাজ করে না সেখানে হ্যাম রেডিওর মাধ্যমে যোগাযোগ স্থাপন করা হবে

উত্তর ২৪ পরগনা ও সুন্দরবনের বেশ কিছু এলাকায় মোবাইল ফোনের নেটওয়ার্ক একেবারেই কাজ করে না।

রাজ্যে সপ্তম তথা শেষ পর্যায়ের ভোট অনুষ্ঠিত হতে চলেছে ১৯শে মে। যে ৯টি লোকসভা কেন্দ্রে এদিন ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে তার মধ্যে কলকাতা ছাড়া উত্তর ২৪ পরগনা ও সুন্দরবনের বেশ কিছু এলাকা রয়েছে যেগুলোতে মোবাইল ফোনের নেটওয়ার্ক একেবারেই কাজ করে না। তাই নির্বাচন কমিশন এই প্রথমবার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, যে এলাকাগুলিতে মোবাইল ফোনের নেটওয়ার্ক কাজ করে না সেগুলিতে হ্যাম রেডিওর মাধ্যমে যোগাযোগ স্থাপন করা হবে।

উত্তর ২৪ পরগনা ও সুন্দরবন অঞ্চলের মধ্যে হিঙ্গলগঞ্জ, ভান্ডারখালি, লেবুখালী, কালিতলা সহ আরো অনেক অঞ্চল রয়েছে মোবাইল শ্যাডো জোনের মধ্যে। এই দুই জায়গার প্রায় ৩১টি বুথ রয়েছে এই মোবাইল শ্যাডো জোনের মধ্যে, অর্থাৎ যেখানে মোবাইল ফোনের নেটওয়ার্ক কাজ করে না। অন্যদিকে কোন মোবাইল সংস্থাও এই অঞ্চলে টাওয়ার বসাতে পারেনি, কারণ বেশ কিছু এলাকা বাংলাদেশ সীমান্তের কাছাকাছি হওয়ায় সরকার থেকেও বেশ কিছু বিধি নিষেধ রেখেছে।

বর্তমানে টেলিফোনের যোগাযোগ ব্যবস্থার মাধ্যমে সংযোগ স্থাপন করা না গেলে এই প্রত্যন্ত অঞ্চলে ভোট করানো কার্যত অসম্ভব হয়ে পড়বে নির্বাচন কমিশনের। তাই এই প্রথমবার পশ্চিমবঙ্গের এইসব প্রত্যন্ত অঞ্চলে নির্বিঘ্নে ভোট করানোর জন্য নির্বাচন কমিশন ওয়েস্টবেঙ্গল রেডিও ক্লাবের সঙ্গে যোগাযোগ করেন।

ওয়েস্টবেঙ্গল রেডিও ক্লাবের সম্পাদক অম্বরিশ নাগ বিশ্বাস জানান নির্বাচন কমিশনের আবেদনের পর যোগাযোগ মন্ত্রকের সম্মতি নিয়েছেন। রাজ্যের সপ্তম দফার নির্বাচনে যে সমস্ত এলাকাগুলি মোবাইল শ্যাডো জোনের মধ্যে পড়ে সেগুলির যোগাযোগ স্থাপনের কাজ করবে হ্যাম রেডিও অপারেটরেরা। যদিও তারা পরিষ্কার জানিয়ে দেন জেলাশাসকের কাছ থেকে অনুমতি পাওয়ার পরই ভোটের দিনই এই কাজ করবেন তারা।

এই যোগাযোগ ব্যবস্থার মাধ্যমে কিভাবে সংযোগ স্থাপন করা হবে এবং কোথায় খবর পাঠানো হবে তা সুনির্দিষ্টভাবে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে আলোচনা করে নিয়েছেন রেডিও অপারেটরেরা। এই কাজের জন্য ৩১ জন বিশেষ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত হ্যাম রেডিও অপারেটরকে নিযুক্ত করা হয়েছে।

মোটের উপর বলা যেতে পারে ভোটের দিন যে সমস্ত এলাকাগুলিতে মোবাইলের টাওয়ার কাজ করে না, সেগুলিতে শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন করার দায়িত্ব থাকবে হ্যাম রেডিও অপারেটরদের কাঁধে। যতক্ষণ পর্যন্ত নির্বাচন কমিশন চাইবেন, ততক্ষণ তারা সচল রাখবেন তাদের রেডিওর নেটওয়ার্ক। সপ্তম তথা শেষ পর্বের নির্বাচনে নির্বাচন কমিশন এই প্রথমবার এক নতুন পদ্ধতি অবলম্বন করলেন নির্বাচনের কাজে।

Support NewsCentral24x7 and help it hold the people in power accountable.
अब आप न्यूज़ सेंट्रल 24x7 को हिंदी में पढ़ सकते हैं।यहाँ क्लिक करें
+